নিষ্প্রাণ উইকেট ফিরে পেল প্রাণ, প্রথম সেশন বাংলাদেশের

নিষ্প্রাণ উইকেট ফিরে পেল প্রাণ, প্রথম সেশন বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক : ক্যান্ডি টেস্টের উইকেট যেন ব্যাটিং স্বর্গে পরিণত হয়েছিল। প্রথম দিকে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের লম্বা ইনিংসের পর একই ছন্দে খেলেছেন লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। তবে চতুর্থ দিনে এসে উইকেট একেবারেই নিষ্প্রাণ হয়ে ওঠে। পুরোদিন ঘাম ঝরিয়েও একটি উইকেট তুলতে পারেনি সফরকারী পেসার কিংবা স্পিনাররা। ফলে এই টেস্টের ফল ড্রয়ের দিকেই এগোচ্ছে বলে সকলেই ধারণা করে রেখেছিল। তবে পঞ্চম দিনে এসে প্রাণ ফিরে পেয়েছে উইকেট। প্রথম সেশনে পাঁচ স্বাগতিক ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দিয়েছেন তাসকিন, এবাদতরা।

রোববার পাল্লেকেলেতে তিন উইকেটে ৫১২ রান নিয়ে দিন শুরু করে শ্রীলঙ্কা। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান দিমুথ করুণারত্নে ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভার দিকে তাকিয়ে থেকে দিনের শুরুতেই রান তুলতে থাকে স্বাগতিকরা।

দ্রুত রান তুলতে গিয়ে ইনিংস বেশি দূর নিতে পারেননি এই যুগল। দলীয় ৫৩৫ রানে ডি সিলভাকে (১৬৬) সাজঘরে পাঠান তাসকিন আহমেদ। এই ব্যাটসম্যান ফিরে গেলে করুণারত্নের সঙ্গে গড়া ৩৪৫ রানের বিশাল জুটিতে ভাঙন ধরে। খানিক সময় পরই বাংলাদেশের দেওয়া লিড অতিক্রম করে স্বাগতিকরা। তবে এরপর আর স্থানীয় হতে পারেননি ওপনার করুণারত্নেও। নিজের পরের ওভারে এসে আবারও উইকেটে আঘাত হানেন তাসকিন। এতেই লঙ্কান অধিনায়কে ২৪৪ রানে সাজঘরে ফেরান তিনি।

দিনের শুরুতে প্রথম দশ ওভার করেন তাসকিন আহমেদ ও আবু জায়েদ রাহী। তাসকিনের হাত ধরে সাফল্য পেলেও রাহী ছিলেন উইকেট শূন্য। দিনের একাদশতম ওভারে বল করতে এসেই সাফল্যে ভাগ বসান আরেক পেসার এবাদত হোসেন। এই পেসারের আউটসাইড অফে করা বল নিসানকার ব্যাট ছুঁয়ে যায় উইকেটরক্ষক লিটন দাসের গ্লাভসে। নিসানকার ব্যাট থেকে আসে ২৩ বলে ১২ রান।

এরপর আবার জুটি গড়তে থাকেন নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে আসা নিরোশান ডিকওয়েলা ও ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। দু’জনের ব্যাটে ৪৩ রানের জুটি পায় স্বাগতিকরা। দলীয় ৫৮৫ রানে মিরাজের রান আউটের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন ডিকওয়েলা। ফেরার আগে অবশ্য ৩৩ বলে ৩১ রান করেন তিনি। লিড যখন শতরান পেরালো তখনই তাইজুলের আঘাত। অর্ধশতকের মুখ থেকে হাসারাঙ্গাকে ফেরান তিনি। ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে ৫৫ বলে ৪৩ রানের দারুণ ইনিংস পায় লঙ্কানরা। পুরো প্রথম সেশনে লঙ্কানদের সংগ্রহ ১৩৬ রান আর বাংলাদেশের প্রাপ্তি ৫ উইকেট।

More News...

তানজিদের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি, বড় রান চট্টগ্রামের

জিশান-আরিফুলের ফিফটিতে বাংলাদেশের বড় জয়