কোন ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল?

কোন ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল?

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ইরানে হামলা চালাতে অত্যাধুনিক ‘র‌্যামপেজ (তাণ্ডব)’ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে ইসরায়েল। একাধিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে। র‌্যামপেজ ক্ষেপণাস্ত্রটি আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ফাঁকি দিতে সক্ষম। টাইমস অব ইসরায়েলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- বাংকারের মতো সুরক্ষিত স্থাপনায় হামলা চালাতে র‌্যামপেজ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করা হয়েছে। এই ক্ষেপণাস্ত্রের ওজন ৫০০ কেজি।
এর আগে নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরানের নাতাঞ্জ পারমাণবিক স্থাপনার কাছে হামলা চালাতে ইসরায়েল উচ্চ প্রযুক্তির ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে। এ ক্ষেপণাস্ত্র ইরানের আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ফাঁকি দিতে সক্ষম।
দুজন পশ্চিমা কর্মকর্তা বলেন, হিসাব-নিকাশ করে এ হামলা চালানো হয়েছিল। উদ্দেশ্য ছিল, ইরানকে এই বার্তা দেওয়া যে অশনাক্ত থেকেই ইরানের আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারে ইসরায়েল এবং সেগুলোকে অচল করে দিতে পারে।
এখন পর্যন্ত এ হামলা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরায়েল। এ ছাড়া হামলার ঘটনাকে ইরানও তেমন গুরুত্ব দিচ্ছে না।
বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইস্পাহান শহরের একটি বিমানঘাঁটিতে ইসরায়েলের চালানো হামলায় সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি স্যাটেলাইটে ধরা পড়া কিছু দৃশ্যে দেখা গেছে। আজ রোববার সকাল পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ধারণ করা হয় এসব দৃশ্য।

বিবিসি ভেরিফাই দুটি দৃশ্য বিশ্লেষণ করেছে। তাতে দেখা যায়, হামলায় ইস্পাহানের ওই বিমানঘাঁটির একটি প্রতিরক্ষাব্যবস্থা আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
এর আগে এ মাসের শুরুতে সিরিয়ায় ইরানি দূতাবাসে ইসরায়েলের হামলায় ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীর দুজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ কয়েকজন নিহত হন। জবাবে ১৩ এপ্রিল ইসরায়েলে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। তবে ইরানের এসব ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্রের ৯৯ শতাংশই আকাশে ধ্বংস করে দেয় ইসরায়েল ও পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক বাহিনী।

More News...

কুষ্টিয়ায় নকল আকিজ বিড়িসহ বিড়ি তৈরির উপকরণ জব্দ

মে দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের র‌্যালি ও সমাবেশ