‘৫৬টি ডট বল খেললে তো দল হারবেই’

‘৫৬টি ডট বল খেললে তো দল হারবেই’

স্পোর্টস ডেস্ক : জয় দিয়েই এবারের আইপিএল শুরু করেছিলো পাঞ্জাব কিংস। নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা হারিয়েছিলো কলকাতা নাইট রাইডার্সকে। পরের ম্যাচেও জয় পেয়েছিলো। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসকে হারিয়েছিলো ৫ রানের ব্যবধানে।

এরপর টানা দুই ম্যাচ হারলো শিখর ধাওয়ানের নেতৃত্বাধীন দলটি। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের পর গুজরাট টাইটান্সের কাছে। বৃহস্পতিবার রাতে গুজরাটের কাছে টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ১ বল বাকি থাকতে হেরেছে তারা।

বোঝাই যাচ্ছে এখনও পর্যন্ত সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না শিখর ধাওয়ানের নেতৃত্বাধীন পাঞ্জাব কিংসের। পরপর দুটি ম্যাচে তাদের ব্যাটিং ব্যর্থতার সম্মুখীন হতে হলো। বিশেষ করে টপ অর্ডারের ব্যর্থতার খেসারত দিতে হল পাঞ্জাবকে।

মোহালির ধর্মশালা স্টেডিয়ামে গুজরাট টাইটান্সের কাছে ছয় উইকেটের বড় ব্যবধানে হারতে হলো পাঞ্জাবকে। শেষ মুহূর্তে এসে ম্যাচ হেরে স্বাভাবিকভাবেই হতাশ অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। কিছুটা হতাশার সুরেই দলের ব্যাটারদেরকে একহাত নিলেন তিনি। তার স্পষ্ট বক্তব্য, ১২০ বলের একটা ইনিংসে ৫৬টা ডট বল খেললে ম্যাচ তো হারতেই হয়।

 

ম্যাচ শেষে পাঞ্জাব অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান বলেন, ‘আমরা স্কোরবোর্ডে প্রয়োজনের তুলনায় রান অনেকটাই কম করেছি। আমি এ বিষয়ে আপনার (প্রশ্নকর্তার) সঙ্গে একমত। তবে সামনের দিকে এগোতে হলে আমাদেরকে এসব জিনিস খুঁজে বের করে উন্নতি ঘটাতে হবে। আমরা যদি ম্যাচটার দিকে (গুজরাটের বিপক্ষে) তাকাই তাহলে বুঝতে পারব একটা টিম ৫৬টা ডট বল খেলার পরে স্বাভাবিকভাবেই তাকে ম্যাচ হারতে হবে। ম্যাচে ইনিংসের শুরুতেই উইকেট হারালে সেই ধাক্কাটা একটা দলকে ব্যাটফুটে ঠেলে দেয়। উন্নতির লক্ষ্যে আমাদেরকে এ বিষয়টায় কাজ করতে হবে।’

বোলারদের প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে শিখর ধাওয়ান জানিয়েছেন, ‘আমি দলের প্রতিটি বোলারের জন্য গর্বিত। আমরা স্কোরবোর্ডে একেবারেই বড় রান করতে পারিনি। সেখান থেকে দাঁড়িয়ে ম্যাচ একেবারে শেষ ওভার পর্যন্ত নিয়ে যাওয়াটা কৃতিত্বের।’

লিয়াম লিভিংস্টোনের ফিটনেস নিয়ে বলতে গিয়ে ধাওয়ান বলেন, ‘গতকাল লিয়াম লিভিংস্টোন আমাদের সঙ্গে অনুশীলন করেন। তার পেশিতে টান ধরেছে। আরও ২-৩ দিন লাগবে সম্পূর্ণ ফিট হতে। তারপর আশা করছি ফিট হয়ে ২২ গজে ফিরবে।’

 

এদিন প্রথমে ব্যাট করে আট উইকেটের বিনিময়ে ১৫৩ রান করে পাঞ্জাব কিংস। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন ম্যাথু শর্ট। এছাড়াও ভানুকা রাজাপাকসে (২০), জিতেশ শর্মা (২৫), স্যাম কারান (২২) এবং শাহরুখ খান (২২*) বলার মতন রান পেয়েছেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র চার উইকেট হারিয়ে এবং এক বল বাকি থাকতে জয় নিশ্চিত করে গুজরাট দল। তাদের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন শুভমান গিল। এ ছাড়া ঋদ্ধিমান সাহা ৩০ রান করেন। ডেভিড মিলার ১৭ এবং রাহুল তেওয়াতিয়া ৫ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন।

More News...

তানজিদের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি, বড় রান চট্টগ্রামের

আমরা মাথা উঁচু করে বিশ্ব-দরবারে এগিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রী