প্রধানমন্ত্রীকে বরণে বর্ণিল সাজে রূপগঞ্জ : আওয়ামীলীগে তৎপরতা

প্রধানমন্ত্রীকে বরণে বর্ণিল সাজে রূপগঞ্জ : আওয়ামীলীগে তৎপরতা

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হাসিনা আজ ২রা ফেব্রæয়ারি বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জে আসবেন। শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পাশে জনতা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ৪নং সেক্টরে রাজউকের কমার্শিয়াল প্লট মাঠে তিনি এক সুধী সমাবেশে ভাষণ দিবেন। ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিড (এমআরটি) লাইন-১ এর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ঘোষণা ও ফলক উন্মোচন করে লক্ষাধিক লোকের সমাবেশে তিনি এ ভাষণ দিবেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে ঘিরে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সমাবেশে অংশ নিতে তারা উৎসাহ উদ্দীপনায় প্রস্তুতি নিচ্ছে। সাজসাজ উৎসব আর আনন্দের আমেজ পরিলক্ষিত হচ্ছে। এনিয়ে প্রতিদিনই পাড়া, মহল্লা, গ্রাম, ওয়ার্ডসহ আশপাশের এলাকায় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দলবদ্ধভাবে তৎপরতা চালাচ্ছেন। গণসংযোগ করছেন। আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়ন কাজ তুলে ধরছেন। সমাবেশে অংশ নেওয়ার জন্য সাধারণ মানুষকে উৎসাহিত করছেন। নিজেদের মধ্যে দীর্ঘদিনের ক্ষোভ, হতাশা, অসন্তোষ, আভ্যন্তরীণ দ্ব›দ্ব, নেতায় নেতায় বিরোধ সবই ভুলে গিয়ে তারা প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ সফল করতে তৎপর হয়ে উঠেছে। দলের পক্ষে সংগঠিত করা, মিটিং, মিছিল, সভা, সমাবেশ কিছুই বাদ যাচ্ছে না। সমাবেশে কে কতো লোকসমাগম করতে পারেন তা নিয়ে স্থানীয় নেতাদের মধ্যে চলছে প্রতিযোগিতা। রঙিন ক্যাপ ও গেঞ্জি পরিধান করে দলীয় নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করবেন।

গত ১জানুয়ারি রূপগঞ্জে অবস্থিত বাণিজ্য মেলার স্থায়ী প্যাভিলিয়নে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ ২ জনুয়ারি বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় বাণিজ্য মেলার অদুরে রূপগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পাশে জনতা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ৪নং সেক্টরে রাজউকের কমার্শিয়াল প্লট মাঠে সুধী সমাবেশে লক্ষাধিক লোকের সমাগমে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ দিবেন। ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিড (এমআরটি) লাইন-১ এর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ঘোষণা ও ফলক উন্মোচন করবেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এসময় উপস্থিত থাকবেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীকসহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

রূপগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে কুড়িল থেকে কাঞ্চন ব্রীজ পর্যন্ত ৩০০ ফুট সড়ক, রূপগঞ্জ-কালিগঞ্জ সড়ক ও ভুলতা-কাঞ্চন সড়কে ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। সমাবেশ স্থলের পার্শ্ববর্তী এলাকা বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে বরণ করতে এখন প্রস্তুত রূপগঞ্জ।
প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের গত ১ মাস ধরে নেয়া প্রস্তুতি গতকাল ১ ফেব্রæয়ারি বুধবার শেষ হয়েছে। ৩০০ ফুট সড়ক সহ আশপাশের সড়কের স্থানে স্থানে তোরণ তৈরি করা হয়েছে। সমাবেশ স্থলের সংযোগ সড়কগুলো সংস্কার ও নির্মাণ করা হয়েছে। কোন কোন স্থান ধুয়ে-মুছে রঙিন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি আর নৌকা প্রতীকের ছবি সংবলিত ব্যানার, ফেস্টুন শোভা পাচ্ছে। এসব ফেস্টুন, ব্যানারে পদ্মা সেতু, বঙ্গবন্ধু ট্যানেল, মেট্রোরেলসহ সরকারের উন্নয়ন চিত্র ফুঁটিয়ে তোলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে রূপগঞ্জ এখন নতুন সাজে সেজেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান রূপগঞ্জে এসেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বহুবার এসেছেন। কিন্তু এবারের চোখ ধাঁধানো আয়োজন আগে কোনদিন করা হয়নি। এনিয়ে এলাকায় বিরাজ করছে সাজসাজ রব আর উৎসবের আমেজ।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদ বলেন, সমাবেশকে কেন্দ্র করে আশপাশের এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সাদা পোশাক ও পোশাকধারী ২ সহ¯্রাধিক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদেরও মোতায়েন করা হয়েছে। তৈরি করা হয়েছে হেলিপ্যাডও। সমাবেশের পার্শবর্তী শীতলক্ষ্যা নদী পথেও নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ ছালাউদ্দিন ভুঁইয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশকে সফল করতে বাড়ি বাড়ি গণসংযোগ করা হয়েছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চিত্র সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরা হয়েছে। রূপগঞ্জ আওয়ামীলীগ এখন সুসংগঠিত।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ শাহজাহান ভুঁইয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও দেশরতœ শেখ হাসিনা রূপগঞ্জে বহুবার এসেছেন। তবে এবারের আয়োজন ব্যতিক্রম।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক বলেন, আওয়ামীলীগ উন্নয়নের সরকার। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে এ দেশের উন্নয়ন হয়। পদ্মাসেতু, বঙ্গবন্ধু ট্যানেল ও মেট্রোরেলই তার প্রমাণ। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে দলীয় নেতাকর্মী আর সাধারণ মানুষের মধ্যে উৎসাহ, উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর এ সমাবেশে লক্ষাধিক লোকের অংশগ্রহণ ঘটবে।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

সাত দফা দাবিতে বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ঘেরাও