বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে দরিদ্রের ঘাড়ে দুর্নীতির দায় চাপানো হচ্ছে

বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে দরিদ্রের ঘাড়ে দুর্নীতির দায় চাপানো হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে অতি দরিদ্রদের ঘাড়ে দুর্নীতির দায় চাপানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি।মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলেন তিনি।

জোনায়েদ সাকি বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে গত ১৪ বছরে বিদ্যুতের মূল্য পাইকারি পর্যায়ে ১০ বার এবং খুচরা পর্যায়ে ১১ বার বৃদ্ধি করেছে। ন্যূনতম জবাবদিহিতার পদ্ধতি হিসেবে বিইআরসিতে গণশুনানির আয়োজন করা হতো, ভোক্তাসহ বিভিন্ন অংশীজনদের মতামত শোনার সুযোগ ছিল, এখন সেটাও বন্ধ করে সরকারের একক সিদ্ধান্তে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে। জবাবদিহিতাহীন সরকার তাদের দুর্নীতি ও ভুলনীতির দায় সাধারণ মানুষের ওপর চাপাতে আর কোনো রাখঢাক রাখতে চাইছে না।

তিনি বলেন, লাইফ লাইনে থাকা অতি দ্ররিদ্রদের বিদ্যুতের দামেও হাত দিয়ে চরম স্বেচ্ছাচারিতার প্রকাশ ঘটালো বর্তমান অগণতান্ত্রিক সরকার। সরকার অতি দরিদ্র্যদেরও আর রেহাই দিতে চাইছে না। তাদের মৌলিক চাহিদার দায়-দায়িত্ব নিতে পারলেও বাড়তি খরচের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সাকি আরও বলেন, এক মাসে তিনবার দুই ধরনের জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি সাধারণ মানুষকে খাদের কিনারে নিয়ে ঠেকিয়েছে। দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন ঊর্ধ্বগতির ফলে মানুষ প্রায় অনাহারে, সেখানে নতুন করে সরকার নিজেই বাড়তি খরচ চাপিয়ে দিচ্ছে।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’