পারমাণবিক মহড়া নিয়ে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র-দ. কোরিয়া

পারমাণবিক মহড়া নিয়ে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র-দ. কোরিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যৌথ সামরিক মহড়া নিয়ে আলোচনা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া। যে মহড়ায় মার্কিন পারমাণবিক অ্যাসেটও অন্তর্ভুক্ত থাকবে। উত্তর কোরিয়াকে মোকাবিলায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইউন সুক-ইওল এ তথ্য জানিয়েছেন। ইউন সুক-ইওল বলেছেন, ওয়াশিংটনের বিদ্যমান ‌‌‘পারমাণবিক ছাতা’ ও ‘বর্ধিত প্রতিরোধ’ দক্ষিণ কোরিয়ানদের আশ্বস্ত করার জন্য যথেষ্ট নয়। এসময় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সক্ষমতার কথা উল্লেখ করেন। বিশেষ করে এর পারমাণবিক শক্তি ও মিত্রদের ওপর আক্রমণ প্রতিরোধের বিষয়ে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আমাদের উদ্বেগ না হওয়ার জন্য বলেছে। কারণ তারাই সব কিছু দেখবে। তবে তা দিয়ে আমাদের জনগণকে আশ্বস্ত করা যাচ্ছে না। এই বিষয়টি মার্কিন প্রশাসনও বুঝতে পারছে। তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক হুমকি মোকাবিলায় মার্কিন পারমাণবিক ফোর্সের অপারেশনে অংশ নিতে চায় সিউল। তিনি আরও বলেন, পারমাণবিক অস্ত্র থাকবে যুক্তরাষ্ট্রের অধীনে। কিন্তু পরিকল্পনা, তথ্য ভাগাভাগি, মহড়া ও প্রশিক্ষণ যৌথভাবে হওয়া উচিত। মার্কিন প্রশাসন এ ব্যাপারে ইতিবাচক বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে পারমাণবিক অস্ত্রের উৎপাদন বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। তাছাড়া নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র উন্নয়নেরও আদেশ দিয়েছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়াকে মোকাবিলায় এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা। কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি এক প্রতিবেদনে জানায়, ওয়ার্কার্স পার্টির এক বৈঠকে কিম অভিযোগ করে বলেছেন উত্তর কোরিয়াকে থামিয়ে দিতে ও একঘরে করে রাখার ষড়যন্ত্র করছে ওয়াশিংটন ও সিউল।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’