সিনহা হত্যা মামলার রায় হতে পারে জানুয়ারিতেই

সিনহা হত্যা মামলার রায় হতে পারে জানুয়ারিতেই

নিজস্ব প্রতিবেদক : অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার রায় জানুয়ারিতেই হতে পারে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম। আজ মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টায় জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈলের আদালতে এই মামলায় তৃতীয় দিনের যুক্তিতর্ক শুরু হওয়ার আগে তিনি এ কথা জানান।

ফরিদুল আলম বলেন, ‘আজ শুরুতে আসামি লিয়াকতের আইনজীবী অসমাপ্ত যুক্তিতর্ক শুরু করবেন। এরপর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন বরখাস্ত ওসি প্রদীপের আইনজীবী। এরপর রাষ্ট্রপক্ষে আমি তাদের যুক্তি খন্ডন করব। এ মাসের শেষের দিকে আমরা মামলার রায় আশা করতে পারি।’

সিনহা হত্যা মামলায় তৃতীয় দিনের যুক্তিতর্ক চলবে আগামীকাল বুধবার ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত টানা চারদিন। এর আগে মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকে কেন্দ্র করে এদিন সকাল সাড়ে ৯টার দিকে অভিযুক্ত ১৫ আসামিকে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে আনা হয়।

গত ২০২১ সালের ৭ ডিসেম্বর সম্পন্ন হয় আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থন করে দেওয়া সাফাই সাক্ষ্য। ওইদিনই বিচারক আজ থেকে টানা চারদিন যুক্তিতর্কের দিন ধার্য করেন। সিনহা হত্যার মামলায় অভিযোগপত্রের তালিকায় নাম থাকা ৮৩ জন সাক্ষীর মধ্যে মোট ৬৫ জন সাক্ষ্য প্রদান করেছেন।

২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি (টেকনাফে দুটি, রামুতে একটি) মামলা করে।

ঘটনার পাঁচদিন পর অর্থাৎ ৫ আগস্ট কক্সবাজার আদালতে টেকনাফ থানার বহিষ্কৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। চারটি মামলা তদন্তের দায়িত্ব পায় র‌্যাব।

২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও র‌্যাব-১৫ কক্সবাজারের তৎকালীন জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খাইরুল ইসলাম।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’