তথাকথিত শিক্ষিতরাই মা-বাবার প্রতি বেশি উদাসীন : প্রধান বিচারপতি

তথাকথিত শিক্ষিতরাই মা-বাবার প্রতি বেশি উদাসীন : প্রধান বিচারপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সমাজের তথাকথিত শিক্ষিতরাই তাদের বৃদ্ধ বাবা-মায়ের প্রতি সীমাহীন উদাসীনতা দেখায় জানিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আজ সোমবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আয়োজিত এক প্রবীণ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সিনিয়র সিটিজেনস ওয়েলফেয়ার সোসাইটি। সোসাইটির চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সংগঠনটির নেতারা এ সময় বক্তব্য দেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, প্রবীণদের প্রতি নিপীড়ন বেড়েই চলছে। তথাকথিত শিক্ষিতরা বয়োবৃদ্ধ বাবা-মায়ের প্রতি সীমাহীন উদাসীনতা দেখাচ্ছেন। যা সবসময় আমাকে ব্যথিত করে। বাবা-মায়ের প্রতি অবহেলা দেখানো সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ আনা এখন বাস্তবতার নিরিখে অপরিহার্য।

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, বাবা-মায়ের ভরণ-পোষণ তথা প্রবীণদের প্রতি নবীনদের দায়িত্ব পালন সব ধর্মেরই শিক্ষা। বাবা-মায়ের ভরণ-পোষণ আইন, ২০১৩ অনুযায়ী প্রত্যেক সন্তানকে তার বাবা-মায়ের ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করতে হবে। কোনও বাবা-মায়ের একাধিক সন্তান থাকলে সেক্ষেত্রে সন্তানরা নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ভরণ পোষণ নিশ্চিত করবে।

সরকারের প্রণীত প্রবীণ নীতিমালা পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ আইন পূর্ণ বাস্তবায়নে সমাজের সকলকে কার্যকর ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানান প্রধান বিচারপতি।

More News...

কোন ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল?

তীব্র তাপপ্রবাহ হাসপাতালগুলোতে জরুরি রোগী ছাড়া ভর্তি না করার নির্দেশ