অন্তঃসত্ত্বা তামিমা, আলোচনায় পিতৃপরিচয়

অন্তঃসত্ত্বা তামিমা, আলোচনায় পিতৃপরিচয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : ক্রিকেটার নাসির হোসেন এবং তার স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মীসহ তিন জনকে বিচারিক আদালত থেকে জামিন দিয়েছেন আদালত। ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন সোমবার এ আদেশ দেন। আদালতে বলা হয় তামিমা ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। আর এরপর থেকেই তামিমার সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা।

আবেদনে বলা হয়, বর্তমান স্বামী নাসির ও তামিমা মামলায় আজ চার্জ গঠনের শুনানির জন্য দিন ধার্য আছে। যেহেতু আসামি তামিমা ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা, সেহেতু আদালতে হাজির হওয়া তার জন্য কষ্টসাধ্য। তাই আসামি তামিমাকে ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি দেয়া একান্ত আবশ্যক।

ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন এই আবেদনের বিষয়ে কোন আদেশ দেননি। তিনি আবেদনটি নথিভুক্ত রেখে এই মামলার চার্জ শুনানির জন্য ২৪ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

অন্যদিকে নাসির মামলায় ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন। আদালত তার আবেদনটি নামঞ্জুর করেন।

এ বিষয়ে তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান বলেন, ‘আদালতে আজ তামিমা একটি কাগজ দেখিয়ে বলেছেন, তিনি ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তবে সে কাগজটি যেহেতু আমরা দেখিনি, তাই এ বিষয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করছি না। আদালতে তামিমা বলেছেন, তিনি ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। কিন্তু, যেখানে স্বামীর বৈধতার বিষয়টিই এখনও মীমাংসা হয়নি, সেখানে তামিমার গর্ভের সন্তান নিয়ে আইনি জটিলতা তৈরি হবে। যদি রাকিব এ মামলায় জয়লাভ করেন, তাহলে এ সন্তানের ভরণ-পোষণের বিষয় রয়েছে। অন্যদিকে, নাসির স্বামী হিসেবে বৈধতা না পেলে তামিমার সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়েও প্রশ্ন উঠবে।’

এর আগে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) রাকিব অভিযোগপত্র দিলে ক্রিকেটার নাসির হোসেন, তার স্ত্রী তামিমা সুলতানা ও তামিমার মা সুমি আক্তারকে আদালতে হাজির হতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর সমন জারি করেছিলেন আদালত।

পিবিআইয়ের রিপোর্টে অবৈধ প্রক্রিয়ায় নাসির-তামিমা বিয়ে করেছেন বলে জানানো হয়। নাসির-তামিমাসহ তিন আসামির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

এরপর মামলার বাদী রাকিবের পক্ষে তার আইনজীবী ইশরাত জাহান তিন আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেন। আদালত তাদের ৩১ অক্টোবর আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন।

গত ৩১ অক্টোবর ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালতে আসামিরা আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

নাসির-তামিমার বিরুদ্ধে বাদীর করা মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, রাকিবের সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক থাকাবস্থায় নাসির বিয়ে করেছেন তামিমা, যা ধর্মীয় ও রাষ্ট্রীয় আইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ অবৈধ। তামিমাকে প্রলুব্ধ করে নাসির নিজের কাছে নিয়ে গেছেন। তামিমা ও নাসিরের এমন অনৈতিক ও অবৈধ সম্পর্কের কারণে রাকিব ও তার আট বছর বয়সি শিশুকন্যা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়েছে। আসামিদের এ ধরনের কার্যকলাপে রাকিবের চরম মানহানি হয়েছে, যা তার জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

More News...

সল্টের ‘কালবৈশাখী ঝড়ে’ নববর্ষ বরণ কলকাতার

নেইমার পেলেন বড় সুখবর