কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে ১০০ জনের শরীরে টিকা পুশ করেন কাউন্সিলর

কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে ১০০ জনের শরীরে টিকা পুশ করেন কাউন্সিলর

নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে অন্তত ১০০ জন মানুষের শরীরে টিকা পুশ করেছেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের এক কাউন্সিলর। ৯ আগস্ট এই ঘটনা ঘটলেও বৃহস্পতিবার টিকা দেওয়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর বিষয়টি নিয়ে নগরে ব্যাপক আলোচনা–সমালোচনা শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগও বিষয়টি এই কয়েক দিনে জানতে পারেনি।

ওই কাউন্সিলরের নাম নাদিয়া নাসরিন। তিনি সিটি করপোরেশনের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর। ৯ আগস্ট নগরের গাংচর এলাকার হারুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় লাগোয়া নিজ অফিসে তিনি মডার্নার ওই টিকা পুশ করেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে নাদিয়া নাসরিন বৃহস্পতিবার রাতে প্রথম আলোকে বলেন, ৯ আগস্ট হারুন স্কুল টিকাকেন্দ্রে ঝামেলা হয়। এরপর টিকা দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। পরে তিনি টিকাগুলো তাঁর অফিসে নিয়ে আসেন। এরপর নিজেই মানুষের শরীরে টিকা পুশ করেন। অন্তত ১০০ জনকে টিকা দেওয়ার কথা স্বীকার করে এই জনপ্রতিনিধি বলেন, ‘অতীতে আমার টিকা দেওয়ার প্রশিক্ষণ ও সনদ আছে। তাই আমি নিজেই টিকা দিয়েছি। এতে কারও কোনো অসুবিধা হয়নি।’

নাদিয়া ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ অনুষ্ঠিত কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বিজয়ী হওয়ার পর আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে, নিজ কার্যালয়ে তিনি টিকাপ্রত্যাশীদের টিকা পুশ করছেন। পাশেই তাঁর বসার চেয়ার। তিনি প্রথমে বোরকা পরে টিকা দিচ্ছিলেন। পরে অতিরিক্ত চাপে এবং প্রচণ্ড গরম থাকায় বোরকা ছেড়ে দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ৯ আগস্ট দুপুর ১২টার দিকে হারুন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় টিকাকেন্দ্রে সরকার দলীয় স্থানীয় কিছু নেতা–কর্মী শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে নিজেদের লোকদের আগে টিকা দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেন। এতে সারিতে থাকা সাধারণ জনগণ ক্ষিপ্ত হন। এ নিয়ে প্রথমে হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এরপর সংঘর্ষের আশঙ্কায় কেন্দ্রটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় নাদিয়া নাসরিন বেশ কয়েকটি টিকার ভায়েল ও বেশ কিছু বিশেষ সিরিঞ্জ নিয়ে টিকাকেন্দ্রের অদূরে তাঁর নিজের বাড়ির সামনের কার্যালয়ে চলে যান। এ সময় তাঁর অনুসারীরাও ওই কার্যালয়ে যান। সেখানে তিনি নিজ হাতে টিকাপ্রত্যাশীদের মধ্যে করোনার টিকার (মডার্না) প্রথম ডোজ প্রয়োগ করেন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন মীর মোবারক হোসাইন বলেন, ‘এটা তো কাউন্সিলরের কাজ না। তিনি কোনোভাবেই টিকা পুশ করতে পারেন না। সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে বিষয়টি জানব। আমি গণমাধ্যমকর্মীদের কাছ থেকে আজই (বৃহস্পতিবার) জানলাম।’

 

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

এমপি আজিম হত্যা মামলা কনক্লুসিভ পর্যায়ে রয়েছে: হারুন