তথ্যমন্ত্রী মিথ্যা তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন : রিজভী

তথ্যমন্ত্রী মিথ্যা তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ কানেও কম শুনেন এবং চোখেও কম দেখেন। তারা মিথ্যার ওপর দাঁড়িয়ে জাতিকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করছেন। আজ বলা হচ্ছে গণটিকাদান ক্যাম্পেইন চলছে। কিন্তু গণমাধ্যমে খবর আসছে দীর্ঘ লাইনেও মিলছে না করোনার টিকা। আসলে ক্ষমতার মোহে আচ্ছন্ন আওয়ামী সরকার কোনো সময়ই ন্যায়-নীতির তোয়াক্কা করেনি। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ শুধু লোপাট করেছে। যে কারণে আজ ঢাকাসহ গ্রামে-গঞ্জে মানুষ করোনার চিকিৎসা পাচ্ছে না। সেই সব এলাকায় আইসিইউ বেড, অক্সিজেন ও অন্যান্য জরুরি চিকিৎসা-সামগ্রীর প্রচণ্ড সংকট দেখা দিয়েছে। এসবের কারণ হলো- সরকারের একটি সিন্ডিকেট স্বাস্থ্যখাতের টাকা লোপাট করেছে। সোমবার (৯ আগস্ট) সকালে গাজীপুর মহানগর আয়োজিত চিকিৎসা ও সুরক্ষা-সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। গাজীপুর মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মো. সালাউদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অংশ নেন সদস্য সচিব মো. সোহরাব উদ্দিন, মো. শওকত হোসেন সরকার, সদস্য রাশেদুল হক প্রমুখ। তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার ব্যর্থ। তারা শুধু পুলিশ ও প্রশাসনের ওপর ভর করে ক্ষমতায় টিকে আছে। আজকে করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের কথা বলা হচ্ছে। অথচ বাইরে রাস্তায় গেলে দেখবেন, যানবাহন যেন স্বাভাবিকভাবেই চলছে। আসলে গণতন্ত্রহীন গণবিরোধী সরকার ক্ষমতায় থাকার কারণে এসব সমন্বয়হীনতা তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের এক মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আমরা বলেছিলাম যে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন নেব না। কারণ বিশ্বের অনেক দেশ ও সংস্থা সেই ভ্যাকসিন নিয়ে সন্দেহ ও আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। সে সময় বলা হয়েছিল, অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন কার্যকর কি-না তা দেখার জন্য বাংলাদেশে ট্রায়াল করা হবে। সেজন্যই মানুষের মনে আরও সন্দেহ বেড়েছিল। কেননা সেই ভ্যাকসিন আসলেই ভালো না মন্দ সেটার স্বীকৃতি তখনো মেলেনি। ফলে আমি করোনার ঝুঁকি নিয়েও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন নিইনি। কিন্তু তথ্যমন্ত্রী ও অন্যরা আমাদের বক্তব্য ভালোভাবে শোনেননি। কারণ তিনি চোখেও কম দেখেন, কানেও কম শোনেন।
তিনি বলেন, ‘তথ্যমন্ত্রী মিথ্যা তথ্যের ওপর দাঁড়িয়ে মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন। অথচ আমি যেটা বলেছিলাম ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন নেব না এবং নিইনি। ফলে ওই টিকা না নিয়েই আমাকে চারমাস কোভিডে ভুগতে হয়েছে। এখন আমি মডার্নার ভ্যাকসিন নিয়েছি। কারণ সেটা যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি।
রিজভী বলেন, ‘আজ আমাদের বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে দলের প্রত্যেকটি নেতাকর্মী করোনাকালে অসহায় মানুষের পাশে সাধ্যমত সহায়তা করছেন। আর এটাও আওয়ামী লীগের সহ্য হচ্ছে না। তারা আমাদের বিভিন্ন কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে। তারা নানাভাবে, নানা রঙে, নানা কৌশলে আমাদের কর্মকাণ্ডকে ঢাকার ষড়যন্ত্র করছেন।’
তিনি বলেন, ‘আজকে সারাদেশ যেন বধ্যভূমিতে পরিণত হয়েছে। রাস্তা দিয়ে হেঁটে গেলে মনে হবে গোটা দেশ যেন গোরস্থানে পরিণত হয়েছে। অথচ অনেক দেশ যেমন ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, নেপালসহ আরও কয়েকটি দেশ জনগণকে বাঁচাতে কত দ্রুত মানবিক পদক্ষেপ নিয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশের অবৈধ সরকার তা গ্রহণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে আজকে মানুষ মারা যাচ্ছে।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’