ঢাকা মহানগর বিএনপির উত্তরের দায়িত্বে আমান, দক্ষিণে সালাম

ঢাকা মহানগর বিএনপির উত্তরের দায়িত্বে আমান, দক্ষিণে সালাম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত করে ঢাকা মহানগর উত্তরে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ডাকসুর সাবেক ভিপি আমান উল্লাহ আমানকে আহ্বায়ক ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হককে সদস্য সচিব এবং দক্ষিণে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালামকে আহ্বায়ক ও রফিকুল আলম মজনুকে সদস্য সচিব করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। উত্তরে ৪৭ সদস্যের কমিটিতে যুগ্ম আহ্বায়ক ১০ জন ও দক্ষিণে ৪৯ সদস্যের কমিটিতে ১২ জন।

আজ সোমবার দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই কমিটি গণমাধ্যমে পাঠানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকা মহানগর বিএনপির উত্তর ও দক্ষিণের দুটি কমিটি অনুমোদন করেছেন।

ঢাকা মহানগর বিএনপিকে দুই ভাগ করে ২০১৭ সালের ১৮ এপ্রিল সর্বশেষ দক্ষিণের ৭০ সদস্যের আংশিক কমিটিতে দলের যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল সভাপতি এবং সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী আবুল বাশার সাধারণ সম্পাদক এবং উত্তরে ৬৬ সদস্যের আংশিক কমিটিতে সাবেক কাউন্সিলর এম এ কাইয়ুমকে সভাপতি ও আহসান উল্লাহ হাসানকে (প্রয়াত) সাধারণ সম্পাদক করা হয়। তাদের মধ্যে উত্তরের সভাপতি এম এ কাইয়ুম মামলা জটিলতার কারণে দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন। গত বছর হাসান করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা গেলে এই দায়িত্ব পান আবদুল আলিম নকী।

নতুন কমিটি ঘোষণার আগে গতকাল রোববার পৃথকভাবে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সদ্য বিলুপ্ত কমিটির দক্ষিণের সভাপতি সোহেল ও উত্তরের সভাপতি কাইয়ুমের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন।

জানা গেছে, সোহেল ও কাইয়ুমকে নতুন কমিটিকে সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে রাজি থাকলে বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব সোহেলকে জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি করা হতে পারে-এমন আভাসও দেওয়া হয়েছে।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হক বলেন, ‘দল ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমার প্রতি আস্থা রাখায় দায়িত্ব ও কর্তৃব্য বেড়ে গেছে। এখন প্রথমত শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে সংগঠনকে গতিশীল করে সেই আস্থার প্রতিদান দেওয়াই হবে আমার মূল কাজ।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেন, ‘দীর্ঘদিন অভিন্ন মহানগরের দায়িত্বে ছিলাম, যেহেতু আবার দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমার উপর আস্থা রেখেছেন, সেই আস্থার প্রতিদান হিসেবে সুসংগঠিত করে দলকে আন্দোলনমুখী করতে চাই। ভেদাভেদ ভুলে দলকে ঐক্যবদ্ধ করে সংগঠনকে গুছিয়ে গণতন্ত্রের মুক্তি, গণতন্ত্রের মাতা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং যাতে আমাদের নেতা তারেক রহমানকে গণতান্ত্রিক পরিবেশে দেশে ফিরিয়ে আনার যে টার্গেট তা বাস্তবায়নে কাজ করব। সেজন্য সবার সহযোগিতা চাই ‘

দক্ষিণের যুগ্ম আহ্বায়ক ১২ জন

নবী উল্ল্যাহ নবী, ইউনুস মৃধা, মো. মোহন, মোশারফ হোসেন খোকন, আব্দুস সাত্তার, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, আনম সাইফুল ইসলাম, হারুন উর রশিদ হারুন, তানভীর আহমেদ রবিন, লিটন মাহমুদ, এসকে সেকেন্দার কাদির ও মনির হোসেন চেয়ারম্যান।

উত্তরের যুগ্ম আহ্বায়ক ১০ জন

আব্দুল আলী নকি, আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, আতিকুল ইসলাম মতিন, মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন, ফেরদৌসি আহমেদ মিষ্টি,এজিএম শামসুল হক, মোয়াজ্জেম হোসেন মতি, আতাউর রহমান চেয়ারম্যান, আক্তার হোসেন ও গোলাম মোস্তফা।

দক্ষিণের সদস্য

ইশরাক হোসেন, ফরিদ উদ্দিন, গোলাম হোসেন,সাব্বির হোসেন আরিফ, ফারুকুল ইসলাম, মকবুল হোসেন টিপু, আবদুল হান্নান, আরিফুর রহমান নাদিম, আনোয়ার হোসেন বাদল, কে এম জুবায়ের এজাজ, ফরহান হোসেন, লতিফ উল্লাহ জাফরু, মকবুল হোসেন সর্দার, মোহাম্মদ আলী চায়না,আবদুল আজিজ,জামিলুর রহমান নয়ন, হাজী শহিদুল ইসলাম বাবুল, আকবর হোসেন নান্টু, শামছুল হুদা কাজল, সাইদুর রহমান মিন্টু, এসএম আব্বাস, লোকমান হোসেন ফকির, জুম্মন হোসেন চেয়ারম্যান, ফজলে রুবায়েত পাপ্পু, আবদুল হাই পল্লব, মহি উদ্দিন চৌধুরী, আরিফা সুলতানা রুমা, সাইফুল্লাহ খালেদ রাজন, ওমর নবী বাবু, আবুল খায়ের লিটন, নাছরিন রশিদ পুতুল, নাদিয়া পাঠান পাপন, হাজী নাজিম, জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারী ও জামশেদুল আলম শ্যামল।

উত্তরের সদস্য

তাবিথ আউয়াল, ফয়েজ আহমেদ ফরু, শাহিনুর আলম মারফত, আবুল হাসেম মাহফুজুর রহমান, আলাউদ্দিন সরকার টিপু, তুহিনুল ইসলাম তুহিন, হাফিজুর রহমান ছাগির, সোহেল রহমান, মো. আক্তারুজ্জামান, আবুল হোসেন আব্দুল, মো. শাহ্ আলম, এল রহমান, আফাজ উদ্দিন, আহসান হাবিব মোল্লা, সালাম সরকার, গোলাম কিবরিয়া মাখন, এবিএম রাজ্জাক, তারিকুল ইসলাম তালুকদার, মো. ইউসুফ, আলী আকবর আলী, আহসান উল্লা চৌধুরী হাসান, মিজানুর রহমান বাচ্চু, হুমায়ন কবির রওশন শাহ আলী, আমজাদ হোসেন মোল্লা, রেজাউর রহমান ফাহিম, মাহবুব আলম মন্টু, হাফিজুর হাসান শুভ্র, জাহাঙ্গীর মোল্লা, আজহারুল ইসলাম সেলিম, শফিকুল ইসলাম শাহিন, আফতাব উদ্দিন জসিম, মো. হানিফ মিয়া, মো. মোজাম্মেল হোসেন সেলিম ও জিয়াউর রহমান জিয়া।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’