বিধিনিষেধের বিষয়ে যা ভাবছে সরকার

বিধিনিষেধের বিষয়ে যা ভাবছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, বিদ্যমান পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ কমানো আমাদের মূল লক্ষ্য। কী উপায়ে কাজ ঠিক রাখা যায়, আবার সংক্রমণ কমানো যায়, এমন সকল বিকল্প উপায় নিয়ে চিন্তা করা হচ্ছে। ব্যবস্থা নিতে একটু সময় লাগবে। শনিবার (৩১ জুলাই) জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন টেলিফোনে এ সব কথা বলেন।

তিনি জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরাধে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত যে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে, তা শিথিল করার চিন্তা করছে সরকার। মানুষের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রীর দিক-নির্দেশনার ওপর।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কঠোর বিধিনিষেধ মানে সবকিছু বন্ধ থাকবে। যেহেতু শিল্প কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে- তাহলে তো কঠোর থাকলো না। শিল্প কারখানাও ধাপে ধাপে খুলে দেওয়া হবে। অন্যান্য অফিস পুরো খুলবে নাকি সীমিত পরিসরে খোলা রাখা যাবে, সেসব বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। পরিস্থিতি বিবেচনা করে ৩ কিংবা ৪ আগস্ট এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার ওপর।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কারখানা খোলার বিষয়ে আমরা শিল্প মালিকদেরকে পরিষ্কার করে বলে দিয়েছি, যে সকল কর্মী ঢাকাতে আছে, বিশেষ করে কারখানার আশেপাশে রয়েছেন তাদের দিয়ে কাজ করাবেন। শিল্প মালিকরাও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তারা ঢাকায় থাকা কর্মীদের নিয়ে কাজ শুরু করবেন এবং যারা বাড়িতে গেছেন তারা চাকরি হারাবে না। শিল্প মালিকরা নিজেদের ব্যবস্থাপনায় পর্যায়ক্রমে ওই সকল শ্রমিকদের ঢাকায় নিয়ে আসবেন।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরামর্শ দেখতে হবে। সব কিছুর সমন্বয় করেই আমাদের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে হবে।

More News...

কুষ্টিয়ায় নকল আকিজ বিড়িসহ বিড়ি তৈরির উপকরণ জব্দ

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের দুর্নীতি মামলা: স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক এমডির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা