চাকরি বাঁচাতে ফিরছে মানুষ, ফেরিঘাটে উপচেপড়া ভিড়

চাকরি বাঁচাতে ফিরছে মানুষ, ফেরিঘাটে উপচেপড়া ভিড়

নিউজ ডেস্ক : চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যে ১ আগস্ট থেকে রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা খুলে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের ঘোষণায় শত ভোগান্তি মাথায় নিয়ে চাকরি বাঁচাতে ভোলার ইলিশা-লক্ষ্মীপুর রুটের ফেরিতে কর্মস্থলে ফিরতে হাজার হাজার শ্রমিকের ঢল নেমেছে।

শনিবার সকাল থেকে ইলিশা-লক্ষ্মীপুর রুটে চলাচলকারী ৩টি ফেরিতে মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। গাদাগাদি করে মানুষ পার হচ্ছেন ফেরিতে করে। তাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি বালাই দেখা যায়নি। যে যেভাবে পারছেন ফেরিতে কর্মস্থলে ছুটছেন। এ কারণে ফেরিতে পার হওয়া কোন যানবাহন নেই। সেই জায়গা দখল করেছে সাধারণ যাত্রীরা।

সরেজমিনে ইলিশা ফেরি ঘাটে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকে কিষাণী, কুসুম কলি ও কনকচাঁপা এই তিনটি ফেরি অন্তত ১০ হাজার যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেছে। ঘাটে আরো কয়েক হাজার যাত্রী পারাপারের অপেক্ষায় ছিল। এসব যাত্রীরা লক্ষ্মীপুর হয়ে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কর্মস্থলে যোগ দেবেন। এদের অধিকাংশই নিন্ম আয়ের মানুষ, যারা পোশাক কারখানাসহ বিভিন্ন কারখানায় কাজ করেন।

এ সময় গাজিপুর এবং নারায়ণগঞ্জ পোশাক কারখানার উদ্দেশ্যে আসা শ্রমিক আবদুল কাদের, শরীফ মাহমুদ ও জিয়াউদ্দিন জানান, লকডাউনের কারণে লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় মহামারি করোনার কঠোর বিধিনিষেধ আর বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে তারা বাধ্য হয়ে চাকরি বাঁচাতে ফেরিতে পারাপার হচ্ছেন।

ভোলা-লক্ষ্মীপুর ফেরি সার্ভিসের মেরিন অফিসার মো. হারুনুর রশিদ জানান, হঠাৎ করে রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা খুলে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তে ফেরি ঘাটে মানুষের ঢল নামে। এই রুটে লঞ্চ এবং সিট্রাক বন্ধ থাকায় অন্তত ১০ হাজার শ্রমিক ৩টি ফেরিতে পারাপার করা হয়েছে। এতে করে ঘাটে অপেক্ষমান পণ্যবাহী যানবাহন পারাপার করা সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।

More News...

বিড়ি শিল্পের শুল্ক প্রত্যাহারসহ পাঁচ দাবিতে বগুড়ায় মানববন্ধন

কুষ্টিয়ায় নকল আকিজ বিড়িসহ বিড়ি তৈরির উপকরণ জব্দ