বহুজাতিক কোম্পানির কর নিয়ে ‘ঐতিহাসিক’ চুক্তি

বহুজাতিক কোম্পানির কর নিয়ে ‘ঐতিহাসিক’ চুক্তি

অনলাইন ডেস্ক : বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর ওপর কর আরোপ নিয়ে এক ‘ঐতিহাসিক’ চুক্তিতে উপনীত হয়েছে বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দেশগুলোর জোট জি-৭। আজ শনিবার জোটভুক্ত সাত দেশের অর্থমন্ত্রীরা এই মতৈক্যে পৌঁছেছেন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অনেক দেশে ব্যবসা করলেও বহুজাতিক কোম্পানিগুলো কর দেয় না। তাই এসব কোম্পানিকে করের আওতায় আনতে জোটের মধ্যে অনেক দিন ধরে আলোচনা চলছিল। লন্ডনে গত কয়েকদিন ধরে বৈঠক চলার পর অবশেষে জোটের অর্থমন্ত্রীরা এসব কোম্পানির ওপর কর আরোপ নিয়ে ঐকমতে পৌঁছালেন।

বিবিসি বলছে, এখন থেকে এসব কোম্পানিকে ন্যূনতম ১৫ শতাংশ করপোরেট কর ধার্যের বিষয়ে নীতিগতভাবে একমত হয়েছেন জি-৭ অর্থমন্ত্রীরা। এতে অ্যামাজন ও গুগলের মতো বড় বড় টেক জায়ান্ট কোম্পানিগুলোর ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে। বিশ্ব অর্থনীতিতে নেতৃত্বদানকারী এ জোটের এমন সিদ্ধান্তের কারণে সরকারগুলো কর হিসেবে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার পাবে; যা দিয়ে মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ব্যয় সংকুলানের নতুন পথ পাবে তারা বলে বিবিসি জানিয়েছে।

জি–৭ গ্রুপের সদস্য হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান ও যুক্তরাজ্য এমন একটি ‘ঐতিহাসিক’ সিদ্ধান্ত নেওয়ায় অন্য দেশগুলোর ওপরও একই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার চাপ তৈরি হবে। আগামী মাসে জি-২০ জোটের বৈঠকেও বিষয়টি উঠতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বর্তমানে কোম্পানিগুলো যেসব দেশে করপোরেট কর তুলনামূলক কম সেসব দেশে তাদের স্থানীয় শাখা খুলে ব্যবসা ও মুনাফাও করতে পারে। এর অর্থ তারা শুধু ওই দেশের স্থানীয় হার অনুযায়ী কর দেয়। যদিও মুনাফার বেশিরভাগ আসে অন্য দেশ থেকে। কোম্পানিগুলো অন্য দেশে পণ্য বিক্রি করলেও কর দেয় একই হারে। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, কোম্পানিগুলো বৈধভাবে এই সুবিধা নিয়ে আসছে। চুক্তিতে এটা বন্ধ করার দুই রকম লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রথমত, জোট চাইছে গোটা বিশ্বে এসব কোম্পানির ব্যবসার জন্য একটি ন্যূনতম কর হার নির্ধারণ হোক। দ্বিতীয়ত; কোম্পানিগুলো যেসব দেশে পণ্য বা সেবা বিক্রি করে, সেসব দেশেও তাদের কর দিতে হবে।

 

More News...

যখনই যেটার দরকার পুলিশকে সেই ভূমিকা পালন করতে হবে : শেখ হাসিনা

যুবলীগ নেতাকে হত্যার দায়ে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৮ জনের যাবজ্জীবন