ফুলবাড়ীতে বিদ্যুতের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন চার গ্রামের লোকজন

ফুলবাড়ীতে বিদ্যুতের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন চার গ্রামের লোকজন

পরেশ গুপ্ত, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতাভূক্ত ঘোষণা করা হলেও বিদ্যুতের দাবিতে গতকাল রবিবার ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন চার গ্রামের তিন’শ পরিবরের লোকজন।
ফুলবাড়ী উপজেলার ৯নং শিবনগর ইউনিয়নের শমসেরনগর, পাঠকপাড়া, লক্ষ্মপুর বেলডাঙ্গা ও আলুরডাঙ্গা আদিবাসীপাড়া গ্রামের বিদ্যুৎ ৩০০ পরিবারের লোকজন ফুলবাড়ীস্থ দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর প্রধান দপ্তরের সম্মুখ সড়কে সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধ করেন।
মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে দ্রুত উল্লেখিত চার গ্রামের ৩০০ পরিবরে বিদ্যুতের সংযোগ দাবি করে বক্তব্য রাখেন শিবনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বিপ্লব, ইউপি সদস্য ফেরাজুল শাহ, গ্রামবাসীর মধ্যে মাসুদ রানা, রাজু ইসলাম, দেওয়ান টুডু, বংশী কিস্কু, প্রমুখ।
বিদ্যুৎ বি ত গ্রামবাসী মাসুদ রানা, রাজু ইসলাম, অমল কিস্কু ও জয়ন্ত মার্ডি বলেন, গ্রামের বাসাবাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে এ কারণে খুঁটি খাম্বা লাগানোর হলেও রহস্যজনক কারণে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত গ্রামবাসী বিদ্যুতের আলোর মুখ দেখতে পায়নি। গ্রামগুলোতে পল্লী বিদ্যুতের পাশাপাশি নেসকো (পিডিবি) সংযোগ থাকায় এ জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে বলে গ্রামবাসীকে জানানো হচ্ছে। গ্রামবাসী জানতে চায় না, বিদ্যুতের আলো পল্লী বিদ্যুৎ দেবে নাকি নেসকো দেবে? গ্রামবাসী চায় বিদ্যুৎ। গ্রামবাসীর বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে দুই প্রতিষ্ঠানের টানাটানিতে গ্রামবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। একই সাথে করোনা সংক্রমণের কারণে ছেলেমেয়েরা বাড়ীতে থাকায় তাদের লেখাপড়াও চরমভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। শুধুমাত্র বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় এসব পরিবারের ছেলেমেয়েরা অনলাইনে তাদের ক্লাস করতে পারছে না। অথচ বিষয়টি নিয়ে কারো কোনো মাথা ব্যাথা নেই। বাধ্য হয়ে বিদ্যুতের দাবিতে মানববন্ধন করতে হচ্ছে।
ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বিপ্লব বলেন, নেসকো এবং পল্লী বিদ্যুৎ ফুলবাড়ীকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় এনেছে বলে ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে। এখন দেখা যাচ্ছে ওই দুই প্রতিষ্ঠানের শতভাগ আওতায় আনার ঘোষণা শুধুমাত্র লোক দেখানো এবং কাগজ কলমেই রয়ে গেছে। বাস্তব চিত্র হচ্ছে, শুধুমাত্র শিবনগর ইউনিয়নেরই চারটি গ্রামের তিন’শ পরিবার এখনও বিদ্যুতের আলো দেখার সৌভাগ্য হয়নি। এ কারণে তারা বিদ্যুতের দাবিতে মানববন্ধন করছেন। কোন প্রকার জটিলতা থাকলে সেগুলো মিটিয়ে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ওই পরিবারগুলোর মাঝে বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়ার ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্টদের উদ্যোগ নেওয়া উচিৎ।
দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ ফুলবাড়ী, বিরামপুর এর মহাব্যবস্থাপক (জিএম) প্রকৌশলী আমজাদ হোসেনের সাথে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য তার দপ্তরে গিয়ে অনেক চেষ্টা করেও তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তার দপ্তরের কর্তব্যরত আনসার সদস্যরা জানান, জিএম স্যার মিটিং করছেন, এ সময় তিনি কারো সাথে কোনো কথা বলবেন না। সাংবাদিকদের সাথে তো আরো বলবেন না।
নেসকো ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহের আবাসিক প্রকৌশলী মো. উজ্জ্বল আলী বলেন, নেসেকো’র বিদ্যুৎ সেগুলো বাসাবাড়ীতে সংযোগ দেওয়া আছে। সেগুলোতে নতুন করে খুঁটি লাগানোসহ নতুন করে তার টানা হচ্ছে। এতে করে বিদ্যুতের ভোল্টেজের কিছু সমস্যা হতে পারে তবে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এটি ঠিক হয়ে যাবে। তবে ওই চার গ্রামের কেউ নেসকো থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ নেওয়ার জন্য আবেদন করেননি।

More News...

যুবলীগ নেতাকে হত্যার দায়ে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৮ জনের যাবজ্জীবন

নগরবাসীর উপর আস্তা রেখেছি: মসিকের মেয়র প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু