শেষ ম্যাচটা শ্রীলঙ্কার

শেষ ম্যাচটা শ্রীলঙ্কার

স্পোর্টস ডেস্ক : সনাৎ জয়াসুরিয়ার দেওয়া বার্তা বেশ কাজে এল। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমবার সিরিজ হারে খুব ব্যথিত ছিলেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক। অনুজদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন, ‘জাতির সম্মান ঝুঁকিতে রয়েছে ছেলেরা, শেষ ম্যাচে লড়াই চালাও।’ কুশল পেরেরা, দুষ্মন্ত চামিরারা তার ডাকে সাড়া দিয়ে দারুণ খেললেন। ব্যাট-বলে বাংলাদেশ তাই এদিন বিবর্ণ, তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচটা শ্রীলঙ্কার।

শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ৯৭ রানের বড় ব্যবধানে জিতেছে লঙ্কানরা। অধিনায়ক কুশল পেরেরার সেঞ্চুরিতে লড়াকু পুঁজির পর চামিরা নিয়েছেন ৫ উইকেট। দিবারাত্রির ম্যাচে ২৮৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশ গুটিয়ে গেছে ১৮৯ রানে। প্রথম দুই ম্যাচ জেতায় অবশ্য ২-১ এ সিরিজ বাংলাদেশের।

প্রথম দুই ম্যাচে বাংলাদেশ আগে ব্যাটিং করে জিতেছিল। স্কোরবোর্ডে মোটামুটি পুঁজি দাঁড় করানোর পর দুই ম্যাচেই জয় আসে আসলে বোলারদের নৈপুণ্যে। এ ম্যাচে আগে বোলিংয়ের চ্যালেঞ্জ নিতে হলো মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমানদের।

শ্রীলঙ্কার ব্যাটাররা টস জিতে ব্যাটিংয়ে নিয়ে অবশ্য সুযোগটা কাজে লাগায় দারুণভাবে। অধিনায়ক কুশলের ১২২ বলে ১২০ রানের ইনিংসের পর ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ৭০ বলে অপরাজিত ৫৫ রান করেন। তাতে ৬ উইকেটে ২৮৬ রানের পুঁজি পায় দলটি। যা মিরপুরের উইকেট বিবেচনায় বেশ চ্যালেঞ্জিং পুঁজি।

বাংলাদেশের পক্ষে সফল বোলার তাসকিন আহমেদ। ৯ ওভার বল করে ৪৬ রান খরচায় নিয়েছেন ৪ উইকেট। এ ছাড়া শরিফুল নিয়েছেন ১ উইকেট।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে যেমন ব্যাটিং প্রয়োজন, তা করতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটরারা। চামিরার তোপে ২৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকেরা।

টপ অর্ডারের তিন ব্যাটারের তিনজনই ব্যর্থ হন। লিটন দাসের জায়গায় একাদশে এসে মোহাম্মদ নাঈম ১ রান করে ফেরেন। সাকিব আল হাসান ৪ ও তামিম ইকবাল ১৭ রানে থামেন। তিনজনকেই তুলে নেন চামিরা।

ব্যাকফুটে পড়ে যাওয়া দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করেছিলেন মুশফিকুর রহিম, মোসাদ্দেক হোসেন ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। চতুর্থ উইকেটে মুশফিক ও মোসাদ্দেক ৫৬ রানের জুটি গড়েন। মুশফিক ২৮ করে ফিরলে মাহমুদউল্লাহ উইকেটে এসে মোসাদ্দেকের সঙ্গে যোগ তরেন ৪১ রান। কিন্তু মোসাদ্দেক ৭২ বলে ৫১ রান করে ফিরলে এই জুটির পতন হয়। মুশফিক ও মোসাদ্দেক দুজনকেই ফিরিয়েছেন রমেশ মেন্ডিস।

বাংলাদেশ এরপর আর আশা জাগানিয়া কিছু করতে পারেননি। যদিও ৫৩ রান করে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মাহমুদউল্লাহ। লোয়ার মিডল অর্ডারে আফিফ হোসেন ১৬ রান করেন। মেহেদী হাসান মিরাজ রানের খাতা খুলতে পারেননি।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে চামিরা ছাড়াও ২টি করে উইকেট নিয়েছেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ও রমেশ মেন্ডিস। ম্যাচসেরা হয়েছেন চামিরা। সিরিজসেরা মুশফিকুর রহিম।

More News...

যখনই যেটার দরকার পুলিশকে সেই ভূমিকা পালন করতে হবে : শেখ হাসিনা

যুবলীগ নেতাকে হত্যার দায়ে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৮ জনের যাবজ্জীবন