তোয়াব খানকে জনকণ্ঠ ছাড়তে বলেছে মালিকপক্ষ

তোয়াব খানকে জনকণ্ঠ ছাড়তে বলেছে মালিকপক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বরেণ্য সাংবাদিক জনকণ্ঠের উপদেষ্টা সম্পাদক তোয়াব খানকে জনকণ্ঠ ছাড়তে বলেছে মালিকপক্ষ। গ্লোব-জনকণ্ঠ শিল্প পরিবার লিমিটেডের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ফোন করে এই কথা বলেছেন বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে একুশে পদক পাওয়া প্রখ্যাত সাংবাদিক তোয়াব খান বুধবার বলেন, তাঁকে অবসর নিতে বলা হয়েছে। তিনি পয়লা জুন থেকে পদত্যাগের জন্য পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দেবেন।

১৯৯৩ সালে জনকণ্ঠের যাত্রার সময় থেকেই পত্রিকাটির সঙ্গে যুক্ত তোয়াব খান। সম্প্রতি পত্রিকাটিতে সংকট দেখা দিয়েছে। বেশ কিছুসংখ্যক সাংবাদিককে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। এ রকম পরিস্থিতির মধ্যেই তাঁকে জনকণ্ঠ ছাড়তে বলা হলো।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য গ্লোব-জনকণ্ঠ শিল্প পরিবার লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুর রহমানকে ফোন করা হলেও তিনি তা ধরেননি।

সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন তোয়াব খান। গত শতকের পঞ্চাশের দশকের শুরুতে সাংবাদিকতা শুরু করেন তোয়াব খান। তিনি সংবাদ, দৈনিক পাকিস্তান, দৈনিক বাংলাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদিকতা করেন। তোয়াব খান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রেস সচিব ছিলেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদেরও প্রেস সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

এ ছাড়া বাংলাদেশ সরকারের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন বরেণ্য এই সাংবাদিক। মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে শব্দসৈনিক ছিলেন তোয়াব খান। তিনি ২০১৬ সালে একুশে পদক পান।

জনকণ্ঠের সম্পাদক ও প্রকাশক মোহাম্মদ আতিকউল্লাহ খান মাসুদ গত ২২ মার্চ মারা গেছেন। এখন তাঁর স্ত্রী শামীমা এ খান পত্রিকাটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

More News...

‘অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন নিয়ে কথা বলে টিআইবি, সহিংসতার বিষয়ে বক্তব্য দেখি না’

দেশের ইতিহাসে সোনার দাম সর্বোচ্চ