১৯ জনের প্রাণ নিলো ঘূর্ণিঝড় ‘তওকত’

১৯ জনের প্রাণ নিলো ঘূর্ণিঝড় ‘তওকত’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রচণ্ড শক্তি সঞ্চয়ের মাধ্যমে ‘অত্যন্ত মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ে’ পরিণত হওয়া ‘তওকত’ ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাটে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে অবশেষে শান্ত হয়েছে। এসময় তওকতের আঘাতে ১৯ জন মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও তওকতের তাণ্ডবে বিভিন্ন স্থাপনা ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার পাশাপাশি উপড়ে গেছে গাছপালা, বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বিভিন্ন এলাকা ব্যাপক ক্ষক্ষতি হয়েছে কৃষির। সূত্র রয়টার্স

মঙ্গলবার দেশটির আবহাওয়া দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পশ্চিম উপকূলে তাণ্ডব চালানো তওকত এই মুহূর্তে শক্তি হারিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এটি আরও দুর্বল হয়ে সাধারণ ঝড়ে পরিণত হতে পারে।

সোমবার রাতে ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাটের উপকূলীয় এলাকায় আছড়ে পড়ে তওকত। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি বলেছেন, ঝড়ের তাণ্ডবে ওই রাজ্যে বিদ্যুতের হাজার হাজার খুঁটি উপড়ে পড়ে। এতে গুজরাটের প্রায় ২ হাজার ৪০০ গ্রামে বিদ্যুৎ সরবরাহ বাধাগ্রস্ত হয়। রাজ্যের প্রায় ১৬০টি সড়ক ধ্বংস হয়েছে, উপড়ে পড়েছে ৪০ হাজারের বেশি গাছ। কয়েকশ বাড়িঘর উড়ে গেছে।

মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি আরো বলেন, রাজ্যের অনেক এলাকায় এখনও ভারী বর্ষণ এবং ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে। যে কোনো ধরনের পারিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্য প্রশাসনকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ বলেছে, তওকতের আঘাতের আগে গুজরাটের উপকূলীয় এলাকার ২ লাখের বেশি মানুষকে তাদের বাড়িঘর থেকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়। সোমবার রাতে এই ঝড়টি রাজ্যের উপকূলীয় এলাকায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২১০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়ে।

গুজরাটের ভবনগর জেলার শীর্ষ কর্মকর্তা গওরং মাকওয়ানা বলেছেন, আমরা বর্তমানে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি। যাতে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে অক্সিজেন সরবরাহে কোনো ধরনের বিঘ্ন না ঘটে।

More News...

কুষ্টিয়ায় নকল আকিজ বিড়িসহ বিড়ি তৈরির উপকরণ জব্দ

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের দুর্নীতি মামলা: স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক এমডির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা