মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে কিশোরকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে কিশোরকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কামাল্লা ইউনিয়নের দক্ষিন নোয়াগাঁও গ্রামে চুরির অপবাদ দিয়ে এক কিশোরকে (১৭) হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

ওই নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার ও গ্রেপ্তারের দাবিতে এলাকায় ক্ষোভ ও নিন্দার ঝড় বইছে।

নির্যাতনের শিকার কিশোর উপজেলার দক্ষিণ নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা। অভিযুক্তরা হলো একই গ্রামের আশিক, মতিন মোল্লার ছেলে রুবেল ও কামাল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার রাতে নোয়াগাঁও গ্রামের কামারচর মোড় এলাকায় একটি মোবাইল ও নগদ কিছু টাকা চুরি হয়। এ চুরির ঘটনায় ওই কিশোর মোবাইল ও টাকা চুরি করেছে বলে সন্দেহ হলে বুধবার সকাল ৬টায় আশিক, রুবেল ও কামালের নেতৃত্বে একদল যুবক তাকে বাড়ি থেকে ধরে আনে। এরপর মোকবল মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায় এবং সেখানে গাছের খুঁটির সঙ্গে হাত-পা বেঁধে দিনব্যাপী নির্যাতন চলায়। পরে একই এলাকার আরে কিশোর (১৫) থেকে মোবাইলটি উদ্ধার করা হয়। নির্যাতনের ঘটনা কাউকে না বলা ও কিছুদিন গ্রাম ছাড়া থাকার হুমকি দিয়ে নির্যাতিত কিশোরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ওই কিশোর বর্তমানে ভয়ে পলাতক রয়েছে।

এ বিষয়ে তার বাবা বলেন, আমি একজন প্রতিবন্ধী অসহায় লোক। ভিক্ষা করে সংসার চালাই। আমি গরীব বলেই আজ আমার ছেলে চুরি না করেও চোর হতে হয়েছে। আমার ছেলেকে আশিক, রুবেল, মোকবল, হোসেন, হান্নান, কামালসহ আরো অনেকে বেঁধে রেখে সারাদিন মারধর করেছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

অভিযুক্ত মোকবল হোসেন তার বাড়িতে নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, যার দোকানে চুরি হয়েছে তারাই তাকে আটক করেছে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাদেকুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আমি অবহিত নই। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

More News...

বিড়ি শিল্পের শুল্ক প্রত্যাহারসহ পাঁচ দাবিতে বগুড়ায় মানববন্ধন

কুষ্টিয়ায় নকল আকিজ বিড়িসহ বিড়ি তৈরির উপকরণ জব্দ