আপিল বিভাগে জামিন বহাল, মুক্তিতে বাধা নেই ইরফান সেলিমের

আপিল বিভাগে জামিন বহাল, মুক্তিতে বাধা নেই ইরফান সেলিমের

নিজস্ব প্রতিবেদক : নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মারধর ও হত্যা চেষ্টার মামলায় ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী মোহাম্মদ সেলিমের ছেলে ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর (বরখাস্ত) ইরফান সেলিমকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিনের আদেশ বহাল রয়েছে।

জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন খারিজ করে রবিবার এ আদেশ দেয় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত ভার্চুয়াল আপিল বেঞ্চ।

সর্বোচ্চ আদালতে জামিন বহাল থাকায় ইরফান সেলিমের কারামুক্তিতে আর কোনো আইনি বাধা নেই বলে জানান তার আইনজীবীরা।

গত বছরের ২৫ অক্টোবর থেকে কারাগারে আছেন ইরফান সেলিম।

তার জামিন প্রশ্নে গত ২৭ জানুয়ারি দেওয়া রুল গত ১৮ মার্চ যথাযথ ঘোষণা করে ইরফান সেলিমকে জামিনের রায় দিয়েছিল হাইকোর্ট। পরে হাইকোর্টের এ আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

গত ২৮ মার্চ শুনানি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত ইরফান সেলিমের জামিন চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে এ বিষয়ে শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। পাশাপাশি জামিনের আদেশের ওপর দেওয়া স্থগিতাদেশ বাতিল চেয়ে আবেদন করেন ইরফান সেলিমের আইনজীবীরা।

ইরফান সেলিমের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ।

অ্যাডভোকেট সাঈদ আহমেদ রাজা দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন খারিজ এবং জামিনের ওপর চেম্বার আদালতের স্থগিতাদেশ বাতিল চেয়ে আমাদের আবেদন গ্রহণ করেছেন আপিল বিভাগ। ফলে ইরফান সেলিমের কারামুক্তিতে কোনো বাধা নেই।’

গত বছরের ২৪ অক্টোবর রাতে ধানমন্ডির একটি সড়কে নৌ-বাহিনীর কর্মকর্তা ওয়াসিমের মোটরসাইকেলকে ইরফান সেলিমকে বহনকারী গাড়ির ধাক্কা দেওয়াকে কেন্দ্র করে ইরফান সেলিমের লোকজন ওই কর্মকর্তাকে মারধর করে রক্তাক্ত করেন। পরে স্থানীয় জনতা ও দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় মারধর ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগ করে ইরফান সেলিম, তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ জাহিদসহ বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন ওয়াসিম।

পরে ২৫ অক্টোবর পুরাণ ঢাকার চকবাজারের ২৬ দেবীদাস লেনে হাজী সেলিমের বাসায় অভিযান চালিয়ে ইরফান সেলিম ও জাহিদকে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ইরফান সেলিমের বাসা থেকে বিদেশি পিস্তল, মদ, বিয়ার, ওয়াকিটকি, হ্যান্ডকাফসহ জাহিদের কাছ থেকে ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। মদ্যপান ও অবৈধভাবে ওয়াকিটকি রাখার অভিযোগে ইরফান ও জাহিদকে ছয় মাস করে এক বছরের কারাদণ্ড দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেই থেকে কারাগারে আছেন ইরফান সেলিম।

More News...

জাতীয় প্রেসক্লাবে বিড়ি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

কৃষকদের টাকা দিলে ফেরত দেয়, কোটিপতিরা দেয় না’