কুতুপালং ক্যাম্প থেকে স্বামী-স্ত্রীসহ তিন রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার

কুতুপালং ক্যাম্প থেকে স্বামী-স্ত্রীসহ তিন রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবির থেকে তিন রোহিঙ্গা নাগরিকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, প্রাথমিকভাবে পারিবারিক কলহের জেরে নিজেদের মধ্যে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত তিনজনের দুইজন স্বামী-স্ত্রী ও অপরজন একই পরিবারের সদস্য বলে জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেশী রোহিঙ্গাদের উদ্ধৃতি দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন জানান, কুতুপালং মেগা ক্যাম্পের ২/ইস্ট ক্যাম্পের ডি-৭ ব্লকে শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ত্রিপল মার্ডারের ঘটনা ঘটেছে। নিহত তিন রোহিঙ্গারা হলেন, উক্ত ক্যাম্পের একই ব্লকের আলী হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৩২), তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম (২৬) ও নুরুল ইসলামের শ্যালিকা হালিমা খাতুন (২২)।

প্রতিবেশী ও নিহতের আত্মীয় স্বজনরা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ চলে আসছিল। তাদের সংসারে ৩টি শিশুও রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদের ব্যাপারে স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকবার বৈঠক হয়েছে। কিন্তু যারা ব্লক ও হেড মাঝি আছে তারা শালিস বিলম্বিত করায় এ খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে তাদের অভিমত।

কুতুপালং উক্ত ক্যাম্পের ইনচার্জ এর দায়িত্বে থাকা উপ-সচিব মো. রাশেদুল ইসলাম খুনের ঘটনা নিশ্চিত করেন বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামী, স্ত্রী ও শ্যালিকাসহ তিনজন খুন হয়েছে।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সন্জুর মোর্শেদ জানান, শরণার্থী শিবিরে তিন খুনের ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিক ভাবে পারিবারিক কলহের জেরে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেলেও বিস্তারিত তদন্তের পর নেপথ্যে কোন বিষয় থাকলে জানা যাবে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

More News...

বিড়ির শুল্ক প্রত্যাহারসহ চার দাবিতে পাবনায় মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেল পৌনে ৮ কোটি টাকা